• সোমবার ৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    স্বপ্নচাষ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন  

    পুলিশের সামনে সাংবাদিক লাঞ্ছিত, হত্যার হুমকি বিক্ষোভ ও থানা ঘেরাও

    স্বপ্নচাষ ডেস্ক

    ১৯ নভেম্বর ২০২২ ১:০৯ পূর্বাহ্ণ

    পুলিশের সামনে সাংবাদিক লাঞ্ছিত, হত্যার হুমকি বিক্ষোভ ও থানা ঘেরাও

    ছবি: সংগৃহীত

    রাজশাহীতে পুলিশের সামনে এক সন্ত্রাসী সাংবাদিকদের হত্যার হুমকি ও একজন জ্যেষ্ঠ সাংবাদিককে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করায় প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা না নেয়ার অভিযোগে সাংবাদিকরা থানা ঘেরাও করেছেন। সাংবাদিকদের লাঞ্ছিত করার ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং আইনি ব্যবস্থা না নেয়ায় রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এস এম সিদ্দিকুর রহমানকে প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ করেন তারা।

    শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে সাংবাদিকরা রাজশাহী নগরীর রাজপাড়া থানা ঘেরাও করেন। পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) উপকমিশনার (ডিসি) মো. আরেফিন জুয়েল ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সাংবাদিকদের দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দিলে সাংবাদিকরা ঘেরাও তুলে নেন। এই সময়ের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে তারা কঠোর কর্মসূচির ঘোষণা দেবেন বলে জানান।

    এদিন সকালে রাজপাড়া থানাসংলগ্ন ‘হোটেল এক্স’ নামের একটি আবাসিক হোটেলে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে হেনস্থার শিকার হন দৈনিক ইত্তেফাকের রাজশাহীর স্টাফ রিপোর্টার মো. আনিসুজ্জামান। বিতর্কিত এই হোটেলে দুটি কোচিং সেন্টার রাজশাহীর সরকারি প্রমথনাথ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে গিয়ে একটি অনুষ্ঠান করছিল। সম্প্রতি এক ঘটনায় বিতর্কিত এই আবাসিক হোটেলে স্কুলের শিক্ষার্থীদের কেন নেয়া হয়েছে, সে বিষয়ে একজন অভিভাবক সাংবাদিক আনিসুজ্জামানকে ফোন করে জানালে তিনি তা দেখতে গিয়েছিলেন।

    সাংবাদিকরা বলছেন, আনিসুজ্জামান সেখানে গিয়ে ছবি তুললে হোটেলের কর্মীরা তাকে আটকে রাখেন। শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে তার ফোন থেকে ছবি ডিলিট করার চেষ্টা করা হয়। খবর পেয়ে সেখানে ছুটে যান রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রফিকুল ইসলাম ও বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম মহাসচিব রাশেদ রিপনসহ কয়েকজন সাংবাদিক। তারা প্রায় একঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকা সাংবাদিক আনিসুজ্জামানকে পুলিশের উপস্থিতিতে উদ্ধার করে হোটেল থেকে বের হচ্ছিলেন। ওই সময় হোটেলের কর্মীরা আবারও পুলিশের সামনে সাংবাদিক আনিসুজ্জামানকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। পারভেজ নামে স্থানীয় এক সন্ত্রাসী হোটেল কর্তৃপক্ষের পক্ষ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি দেন। এসব ঘটনায় পুলিশ নির্বিকার ছিল বলে অভিযোগ সাংবাদিকদের।

    পরে সাংবাদিকরা হোটেল এক্সের সামনে অবস্থান নিয়ে অভিযুক্তদের আটকের দাবি জানালে পুলিশ দুজনকে থানায় নেয়। সাংবাদিকদের অভিযোগ, এরপর আইনি ব্যবস্থা নিতে গড়িমসি করেন ওসি এ এস এম সিদ্দিকুর রহমান। তিনি হোটেল এক্সের পক্ষ নিয়ে কথা বলতেও শুরু করেন। এর প্রতিবাদে সাংবাদিকরা থানার সামনে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন। তারা ওসিকে প্রত্যাহারের দাবি জানান।

    সাংবাদিকরা প্রায় আড়াই ঘণ্টা রাজপাড়া থানা অবরোধের পর সেখানে উপস্থিত হন ডিবির ডিসি আরেফিন জুয়েল। তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। সাংবাদিকদের দাবি মেনে নিতে তিনি ৪৮ ঘণ্টা সময় চান। অপরাধীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দেন। তার আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে সাংবাদিকরা ঘেরাও তুলে দেন।
    আরেফিন জুয়েল বলেন, এখানে একটি অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। তবে অপরাধী কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। আমরা সাংবাদিকদের দাবির কথা শুনেছি। তাদের দাবি পূরণে আমরা সময় চেয়েছি।

    রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, ডিবির উপকমিশনার দাবি পূরণের জন্য ৪৮ ঘণ্টা সময় চেয়েছেন। আমরা তার কথায় আস্থঅ রেখে ঘেরাও তুলে নিয়েছি। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে দাবি মেনে নেয়া না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

    এর মধ্যে স্থানীয় সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত পারভেজ ও হোটেলের কর্মী অমিত ঘোষের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ছয়-সাতজনের নামে মামলা করেন সাংবাদিক আনিসুজ্জামান। তাদের দুজনকে আগেই আটক করেছিল পুলিশ। পরে মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

    স্বপ্নচাষ/এসএস

    Facebook Comments Box
    স্বপ্নচাষ ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন  

    বাংলাদেশ সময়: ১:০৯ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ১৯ নভেম্বর ২০২২

    swapnochash24.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১ 
    advertisement

    সম্পাদক : এনায়েত করিম

    প্রধান কার্যালয় : ৫৩০ (২য় তলা), দড়িখরবোনা, উপশহর মোড়, রাজশাহী-৬২০২
    ফোন : ০১৫৫৮১৪৫৫২৪ email : sopnochas24@gmail.com

    ©- 2022 স্বপ্নচাষ.কম কর্তৃক সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।